• ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বন্দি ফিলিস্তিনি পুরুষদের নগ্ন ছবি প্রকাশ করল ইসরায়েল

ডেস্ক
প্রকাশিত ডিসেম্বর ৯, ২০২৩, ১৩:৫৯ অপরাহ্ণ
বন্দি ফিলিস্তিনি পুরুষদের নগ্ন ছবি প্রকাশ করল ইসরায়েল
সংবাদটি শেয়ার করুন....

গাজায় আটক ফিলিস্তিনি পুরুষদের অন্তর্বাস খুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারের পর ফিলিস্তিনি, আরব ও মুসলিম কর্মকর্তারা শুক্রবার ইসরায়েলের প্রতি তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

ইসরায়েল প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) এবং হামাস উভয়ই শুক্রবার এসব ছবির বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে।

ফিলিস্তিনি ইসলামপন্থী হামাস গোষ্ঠীর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা ইজ্জাত এল-রেশিক নিরীহ বেসামরিকদের সঙ্গে এমন জঘন্য অপরাধের জন্য ইসরায়েলকে অভিযুক্ত করেছেন।

রেশিক বিদেশে নির্বাসনে থাকলেও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলোর প্রতি ফিলিস্তিনি পুরুষদের সঙ্গে কী ঘটেছে সে ব্যাপারে হস্তক্ষেপ এবং তাদের মুক্তি নিশ্চিতে সহায়তা করার আহ্বান জানিয়েছেন।

ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দ্য রেড ক্রস (আইসিআরসি) বলেছে, ছবিগুলো দেখে তারা উদ্বিগ্ন এবং আন্তর্জাতিক মানবিক আইন অনুসারে সব বন্দিদের সঙ্গে আচরণ করা উচিত।

নিরাপরাধ বন্দি ও নাগরিকদের সঙ্গে এমন বর্বর আচরণে ইসরায়েলের কঠোর সমালোচনা করেছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান।

বৃহস্পতিবার ইসরায়েলি টিভি ফুটেজে হামাস যোদ্ধাদের বন্দি অবস্থায় দেখানো হয়েছে। ওই সময় গাজা শহরের রাস্তায় মাথা নত করে তাদের অন্তর্বাস খুলে রাখা হয়েছে।

ইসরায়েল সরকারের মুখপাত্র আইলন লেভি ব্রিফিংয়ে এসব নগ্ন ছবি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, গাজা শহরের জাবালিয়া এবং শেজাইয়া এলাকার যেসব স্থানে হামাসের শক্ত ঘাঁটি সেসব স্থান থেকে আমরা তাদের আটক করেছি। ইসরায়েলে ৭ অক্টোবর হত্যাকাণ্ডের পর গাজায় হামাসকে নির্মূল করার অভিযান শুরু হয়। ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী বেসামরিক নাগরিকদের ওই এলাকা ছেড়ে চলে যেতে বলছে ।

ইসরায়েল প্রতিরক্ষা বাহিনীর (আইডিএফ) মুখপাত্র জোনাথন কনরিকাস সিএনএনকে বলেন, ছবিতে থাকা ব্যক্তিরা হামাস সদস্য এবং সন্দেহভাজন হামাস সদস্য। তারা বিস্ফোরক বহন করছে না, তা নিশ্চিত করার জন্য পোশাক ছাড়া অবস্থায় তাদের রাখা হয়।

ইউরো-মেডিটারিয়ান হিউম্যান রাইটস মনিটর আটক বন্দিদের একটি চিত্র পোস্ট করে বৃহস্পতিবার তার ওয়েবসাইটে একটি বিবৃতিতে বলেছে, ইসরায়েলি সেনাবাহিনী কয়েক ডজন ফিলিস্তিনি বেসামরিক নাগরিককে আটক করেছে এবং গুরুতরভাবে নির্যাতন করেছে। তারা রিপোর্ট পেয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী ডাক্তার, শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক এবং বয়স্ক পুরুষদেরসহ বাস্তুচ্যুত লোকদের বিরুদ্ধে নির্বিচারে গ্রেপ্তার অভিযান শুরু করেছে।

ইসরায়েলি মিডিয়া কোনো উৎসের ইঙ্গিত না করে ছবিগুলো হামাস সদস্যদের আত্মসমর্পণ হিসেবে দেখিয়েছে।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে আইডিএফের মুখপাত্র রিয়ার অ্যাডমিরাল ড্যানিয়েল হাগারিকে এই ছবিগুলো সম্পর্কে একজন সাংবাদিক প্রশ্ন করেন। জবাবে তিনি বলেন, আমরা অনেক বন্দি হামাস সন্ত্রাসীদের ছবি দেখেয়েছি, যাদের আইডিএফ স্থল অভিযানের সময় গ্রেপ্তার করেছে।

হাগারি আরও বলেন, হামাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে, যারা এলাকায় রয়ে গেছে তারা ধীরে ধীরে বেরিয়ে আসছে। আমরা তদন্ত করে দেখছি কার হামাসের সঙ্গে সম্পর্ক আছে, আর কার নেই। আমরা তাদের সবাইকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছি। যতক্ষণ না আমাদের কাজ শেষ হবে ততক্ষণ আমরা সে দুর্গগুলো প্রত্যেকটি ভেঙে ফেলতে থাকব।

শুক্রবার ইসরায়েলি সরকারের মুখপাত্র আইলন লেভি সিএনএনকে বলেছেন, গাজায় গণ আটকের ছবিতে যাদের দেখানো হয়েছে তারা সবাই সন্দেহজনক সন্ত্রাসী।