• ২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাজায় ইসরায়েলি হামলায় জাতিসংঘের ২৯ কর্মী নিহত

ডেস্ক
প্রকাশিত অক্টোবর ২৩, ২০২৩, ০৫:৫৫ পূর্বাহ্ণ
গাজায় ইসরায়েলি হামলায় জাতিসংঘের ২৯ কর্মী নিহত
সংবাদটি শেয়ার করুন....

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজায় ইসরায়েলের হামলা শুরুর পর গত ৭ অক্টোবর থেকে জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি শরণার্থী সংস্থার ২৯ কর্মী নিহত হয়েছেন। রোববার ফিলিস্তিনিদের নিয়ে কাজ করা জাতিসংঘের সংস্থা ইউএনআরডব্লিউএ এই তথ্য জানিয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এক্সে এক পোস্টে ইউএনআরডব্লিউএ বলেছে, আমরা মর্মাহত এবং শোকস্তব্ধ। এখন পর্যন্ত নিশ্চিত হয়েছে যে, ৭ অক্টোবর থেকে আমাদের ২৯ সহকর্মী নিহত হয়েছে।

এর আগে শনিবার ১৭ জন সহকর্মী হারানোর বেদনাদায়ক খবর দিয়েছিল ইউএনআরডব্লিউএ। সংস্থাটি জানিয়েছে, তাদের নিহত কর্মীদের মধ্যে বেশিরভাগই ছিলেন শিক্ষক।

গাজায় ইসরায়েলের নির্বিচারে হামলার মধ্যে লাখ লাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে। হাজার হাজার গাজাবাসী ইউএনআরডব্লিউএ সুবিধাগুলোতে আশ্রয় চেয়েছে।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মতে, ওই বিমান হামলায় ৪ হাজার ৭০০এরও বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। হামলার পর থেকে গাজায় সর্বাত্মক অবরোধ আরোপ করেছে ইসরায়েল। এর ফলে অবরুদ্ধ গাজায় জ্বালানি, পানি, খাদ্য ও বিদ্যুতের মারাত্মক সংকট দেখা দিয়েছে।

জাতিসংঘের সংস্থাটি জানিয়েছে, তাদের স্কুলে হামলা চালিয়ে ১২ জন বেসামরিক এবং বাস্তুচ্যুত মানুষকে হত্যা করেছে ইসরায়েল। এছাড়া হামলায় ইউএনআরডব্লিউএ এর ৩৮টি স্থাপনা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ইউএনআরডব্লিউএ সতর্ক করেছে যে, গাজায় তাদের জ্বালানি সরবরাহ তিন দিনের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে।

ইউএনআরডব্লিউএ প্রধান ফিলিপ লাজারিনি বলেন, ‘জ্বালানি ছাড়া পানি থাকবে না, কোনো কার্যকরী হাসপাতাল ও বেকারি থাকবে না। জ্বালানি ছাড়া মারাত্মক সংকটে থাকা হাজার হাজার মানুষের কাছে সাহায্য পৌঁছাবে না। জ্বালানি ছাড়া, কোন মানবিক সহায়তা দেওয়া যাবে না।

We are in shock and mourning.

It is now confirmed that 29 of our colleagues in📍#Gaza have been killed since October 7.

Half of these colleagues were @unrwa teachers.

As an Agency, we are devastated. We are grieving with each other and with the families. pic.twitter.com/TPTdUAAjg3

— UNRWA (@UNRWA) October 22, 2023
সংস্থাটি জানিয়েছে, রাফাহ ক্রসিং পয়েন্টে একটি টার্মিনাল থেকে ছয় ট্রাক জ্বালানি সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছিল। কিন্তু সেটি গাজার প্রায় ২৪ লাখ বাসিন্দাদের দৈনন্দিন চাহিদা মেটানোর জন্য খুবই কম।

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজায় পিঁপড়ার মতো মানুষ হত্যা করছে ইসরায়েল। চরম মানবিক সংকটে থাকা লাখ লাখ মানুষের ওপর নির্বিচারে বিমান হামলা করছে তারা। ফিলিস্তিনি বার্তি সংস্থা ওয়াফার বরাত দিয়ে আল জাজিরা জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নতুন করে চার শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

আরও পড়ুন: ‘গাজার মানবিক সংকট নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী নয় ইসরায়েল’

খবরে বলা হয়েছে, জনবহুল ও বেসামরিকদের লক্ষ্য করে বিভিন্ন আবাসিক ভবনে অবিরাম হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েল। রোববার ২৪ ঘণ্টায় গাজাজুড়ে অন্তত ৪০০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ফিলিস্তিনি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ৭ অক্টোবর হামাসের হামলার পর রোববার সবচেয়ে ভারী বোমা হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল।

রোববার ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ‘ইসরায়েলের হামলার ফলে গাজায় অন্তত ৪,৭৪১ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এছাড়া আরও অন্তত ১৫ হাজার ৮৯৮ জন আহত হয়েছেন।’

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, ইসরায়েলের বিমান হামলায় মারা যাওয়া মানুষের অর্ধেকের বেশি নারী ও শিশু।