প্রকৃতি যেন তার রূঢ় রূপ থেকে সরছে অনেকটা

প্রকাশ: 7 May, 2020 6:24 : AM

স্বাভাবিকের চেয়ে কম বৃষ্টি হওয়া এবং তাপমাত্রা বেশি হওয়া সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আবহাওয়ার অস্বাভাবিক এক প্রবণতা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে চলতি বছরে করোনার প্রাদুর্ভাবে মানুষ ঘরবন্দি ও কলকারখানা বন্ধ থাকায় প্রকৃতি যেন তার রূঢ় রূপ থেকে অনেকটা সরে এসেছে।
গত এপ্রিলের বৃষ্টিপাত ও তাপমাত্রা বিশ্লেষণ করে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, স্বাভাবিকের চেয়ে এ মাসে ২০ শতাংশ বৃষ্টি বেশি হয়েছে। এ মাসে দেশের সর্বোচ্চ এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে যথাক্রমে দশমিক ৯ ও ১ দশমিক কম ছিল।
আবহাওয়া অধিদফতর আরো জানিয়েছে, স্বাভাবিকের চেয়ে ২০ শতাংশ বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে, তবে ঢাকা বিভাগে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হয়েছে। পশ্চিমা লঘুচাপের সাথে পূবালী বায়ু প্রবাহের সংযোগ এবং বায়ুমণ্ডলের নিম্নস্তরে জলীয় বাষ্পের যোগান বৃদ্ধি পাওয়ায় ১-৪, ১১-১২, ১৫-২১ এবং ২২-৩০ এপ্রিল সময়ে দমকা/ঝড়ো হাওয়া এবং বিজলী চমকানোসহ সারাদেশে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টি হয়েছে। এ সময় দেশের কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টি ও শিলাবৃষ্টিও হয়।
বাংলাদেশ ও এর পাশের এলাকায় তাপীয় লঘুচাপের উপস্থিতির কারণে ১ থেকে ১৫ এপ্রিল সময়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ পরিস্থিতির উদ্ভব হয়। এ সময় এ মাসে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৯ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস (৭ এপ্রিল চুয়াডাঙ্গায় এবং ১০ এপ্রিল রাজশাহীতে) রেকর্ড হয়। এ মাসে দেশের সর্বোচ্চ এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিক অপেক্ষা যথাক্রমে দশমিক ৯ ও ১ দশমিক কম ছিল।
তাপপ্রবাহ, কালবৈশাখী ঝড়, শিলাবৃষ্টি, কৃষি আবহাওয়া এবং দেশের নদ-নদীর অবস্থা এপ্রিল মাসের পূর্বাভাসের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ ছিল বলেও দাবি করেছে আবহাওয়া অফিস।